নিউজ

“আমরা (কংগ্রেস) ফের ক্ষমতায় এলে আগে বাতিল করবো সংশোধিত কৃষি আইন”- পাঞ্জাবে মোদিকে একহাত নিলেন রাহুল!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-দেশে এই মুহূর্তে উত্তরপ্রদেশের হত্যাকাণ্ড নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে। তবে তার মধ্যে কোথাও যেন দুদিন আগে শিরোনামের শীর্ষে থাকা কৃষি বিল এর আলোচনা ধামাচাপা পড়ে গেছে । অনেকে বলছে এটি বিজেপি সরকারের একটি চক্রান্ত। একের পর এক ঘটনাকে ইচ্ছাকৃত সামনে এনে আগের ঘটনা কে ধামাচাপা বা ভুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে যদিও এমনটা হতে দেবেন না বিরোধী দলগুলি।

তার কারণ ওই দিন পাঞ্জাবে একটি পথযাত্রার আয়োজন করেছিল পাঞ্জাবের কংগ্রেস এবং সেইখানে উপস্থিত ছিলেন রাহুল গান্ধী । শুধু উপস্থিতি ছিলেন না তিনি তার বক্তব্যের মাধ্যমে রীতিমতো একের পর এক তোপ দেগেছেন গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে ।

বেশ কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক সংসদে ১৫ টি গুরুত্বপূর্ণ বিল পাস করিয়ে নেয় । তার মধ্যে অন্যতম প্রধান বিল হল কৃষি বিল । যা কিনা সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে কৃষকরা মনে করছে যে তাদের জীবনে এক অনিশ্চয়তা অন্ধকার ডেকে আনবে । আমরা জানি গত ৪০ বছর ধরে পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার সমগ্র দেশের খাদ্য সরবরাহ করে আসছে। এবং পাঞ্জাব হরিয়ানা হলো কৃষিভিত্তিক রাজ্য। অতএব এই রাজ্য এ কৃষি বিল এর প্রভাব সবথেকে বেশি পাঞ্জাবে যে পড়বে এমনটা খুব স্বাভাবিক। তার একটা পরিষ্কার চিত্র ফুটে উঠল “খেতি বাঁচাও “আন্দোলনে।

আগামী দিনে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কর্মসূচি এবং পদযাত্রার ডাক দিয়েছেন কংগ্রেস। যার নাম ” খেতি বাঁচাও ” । এর পাশাপাশি শুধু একটি পদযাত্রা নয়, দেশজুড়ে অসংখ্য পদযাত্রায় অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে রাহুলের। যেটির শুরু হল এই পদযাত্রার মাধ্যমে। এই সভা থেকে তিনি কটাক্ষ করেছেন কেন্দ্রীয় সরকারকে তিনি বলেছেন “আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি, যেদিন কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসবে, সেদিন এই আইন বাতিল করা হবে।

আমরা এই তিনটি কালা কানুনকে আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলব।’‌ এখানে তিনি থেমে থাকেননি। তিনি আরও একধাপ এগিয়ে গিয়ে বলেছেন ” এই আইনে যদি কৃষকরা খুশি হয়ে থাকেন, যেমনটা প্রধানমন্ত্রী দাবি করছেন, তাহলে তাঁরা কেন আন্দোলনে নেমেছেন?‌ যদি কৃষকের স্বার্থেই এই আইন হয়ে থাকে, তাহলে কেন সংসদে আইন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হল না?‌’

ঐদিন ওই সভাতে উপস্থিত ছিলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং।  তিনি কৃষি বিলের বিরোধিতা করে এবং কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে বলেছেন ” কৃষি বিল পাশ হওয়ার পরে কৃষকের নূন্যতম সহায়ক মূল্য কার্যকর করার বিষয়ে কোনও আইন পাশ করেনি কেন্দ্র। তার মানে এটা দাঁড়ায় যে এমএসপি মোটেই নিশ্চিত নয়। ” এর পাশাপাশি কৃষিবিল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের মামলা করবে রাজ্যের কংগ্রেস । এমনটাই জানিয়েছে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button