নিউজপলিটিক্স

এবার শ্লীল’তা’হা’নির অভিযোগ আনলেন দলের মহিলা মোর্চা, অভিযুক্ত করা হলো বিজেপি জেলা সম্পাদককে!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে-র কথা বললে প্রথমে মাথায় আসে তৃণমূলের আসে তৃণমূলের নাম । কারণ বিগত বছরে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত আছে তৃণমূল । এমনটা বিভিন্ন সময় আমরা দেখেছি । দেখেছিলাম গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব শিকার হয়েছে বিভিন্ন মানুষের ।

তা খবর ব্যক্ত করা আছে বহু বছর ব্যক্ত করা আছে বহু বছর ধরে। কিন্তু সম্প্রতি দেখা যাচ্ছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বিজেপির গো-ষ্ঠীদ্ব-ন্দ্ব বিজেপির মধ্যে। এবার বারুইপুরের সেই ঘটনাই ঘটল বিজেপির সাথে। শুধুমাত্র গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব থেমে থাকেনি বিজেপি। আরো এক ধাপ ধাপ এগিয়ে পৌঁছেছে শ্লীলতাহানি তেও । এমনটাই খবর শোনা যাচ্ছে তবে কি ঘটেছিল বিস্তারিত জানাবো আপনাদের।

রবিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনা বারুইপুরের সদ্য নির্বাচিত বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক অনুপম হাজরা তার দলীয় কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন । সেখান থেকে তিনি একটি কুরুচিকর মন্তব্য করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর উপর । ফলে নিমিষের মধ্যে জড়িয়ে যায় বিতর্কে । সেই অনুপম হাজরা সভাকে ঘিরে বি-ক্ষো-ভ শুরু হয় এবং বি-ক্ষো-ভ দেখানো তারই দলেরই দলেরই মহিলা মোর্চার সদস্যরা ।

রবিবার বারুইপুরে বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক অনুপম হাজার পৌঁছতেই তাঁকে ঘিরে জেলা নেতৃত্বের বি-রু-দ্ধে অভি-যো-গ করতে শুরু করেন দলের কর্মী-সমর্থকরা। এনিয়ে দুপক্ষের মধ্যে তুমুল মারামারি বেধে যায়। মারামারিতে ৫ জন গুরুতর আহত হন। শুধু তাই নয় অভি-যো-গ ওঠে জেলা সভাপতির উপস্থিতিতেই পার্টি অফিসের মধ্যেই মহিলাদেরও হেনস্থা করা হয়েছে। গায়ে হাত দেওয়া হয়, শাড়ি ধরে টানাটানি করা হয়েছে। এরকম ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই নারী সুরক্ষা নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক চা-ঞ্চ-ল্য বারুইপুর জুড়ে।

বারুইপুরের বিজেপি মহিলা মোর্চার সদস্য মধুস্মিতা রায় শ্লীল’তা’হা’নির অ-ভি-যো-গ আনে জেলা সম্পাদক স্বরূপ দত্ত ও সভাপতি দেবপম চট্টোপাধ্যায়ের বি-রু-দ্ধে । মহিলা মোর্চার সদস্যরা ওই দিন বারুইপুর থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন এবং অভিযোগের ভিত্তিতে থানার পুলিশ তাকে গ্রে-প্তা-র করে। তার বক্তব্য যে সম্পাদক এবং সভাপতির উপস্থিতিতে পার্টি অফিসে বিভিন্ন অশ্লীল কাজ কর্ম চলে, ও নারীদের হেনস্থা করা হয়।

যদিও এই ঘটনা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছে স্বরূপ দত্ত এবং দেবপম চট্টোপাধ্যায় । তবুও মহিলা মোর্চার পক্ষ থেকে দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে ত-দ-ন্ত শুরু করেছে পুলিশ এবং আপাতত বিচারাধীন হেফাজতে সাধারণ সম্পাদক ও ও সভাপতি । এর পাশাপাশি রাজনৈতিক মহলে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে সমালোচনা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button