নিউজ

লকগেট ভে’ঙে বি’প’ত্তি ঘটলো দুর্গাপুর ব্যারেজে, বন্যার আশঙ্কা যে কয়েকটি জেলায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-এই বছরটি সত্যিই একটি অ-ভিশ-প্ত বছর । চারিদিক থেকে দুঃসংবাদ প্রায়ই আমাদের মাঝে মাঝে কানে আসে। ঠিক সেরকমই ফেরার একটি দুঃসংবাদ এলো দুর্গাপুর থেকে। গত শনিবার দুর্গাপুরে ব্যারেজ এর ৩১ নম্বর লকগেট ভেঙে যায় । পুনরাবৃত্তি হয় ২০১৭ সালের ঘটনা । ২০১৭ সালে দুর্গাপুর ব্যারেজের ১ নং লকগেট ভেঙে যাওয়াতে রীতিমতো জনশূন্য হয়েছিল দুর্গাপুর ব্যারেজ এবং জল সংকটের সম্মুখীন হয়েছিলাম পশ্চিম বর্ধমান বাঁকুড়া শহর অনেক এলাকা । তবে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল আবার ।

শনিবার সকালে হঠাৎই এক দলের নজরে আসে যে দুর্গাপুর ব্যারেজের ৩১ নম্বর গেট ভেঙে গেছে। হুহু করে বেরিয়ে যাচ্ছে আটকে থাকা জল । এর ফলে একদিকে যেমন জল সংকটের আশা রয়েছে তার পাশাপাশি অন্যদিকে পশ্চিম বর্ধমানের বিভিন্ন জেলায় বন্যার আশা রয়েছে প্রবল পরিমাণে। মেরামতির কাজ শুরু হয়নি তবে খুব শিগগিরই শুরু হবে বলে জানিয়েছে প্রশাসন ।

দুর্গাপুর ব্যারেজের উপরে নির্ভর করে থাকে বাঁকুড়া পশ্চিম বর্ধমান। তবে দুর্গাপুর ব্যারেজে জল শুন্য হয়ে যাওয়ার কারণে রীতিমতো জল সংকটে পড়তে চলেছে বাঁকুড়া এবং পশ্চিম বর্ধমান। এর পাশাপাশি শহর জুড়ে চলছে মাইকিং এবং সচেতনতা । আগামী বেশ কয়েক দিন যাতে জল অপচয় বন্ধ করা হয় তার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে শহরবাসীকে । এর পাশাপাশি মেয়র সমস্ত শহরবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন যে তারা যথাসম্ভব চেষ্টা করবেন যাতে তাদের জলের সমস্যা না ঘটে এই কয়েকদিন।

ঐদিন ঘটনা পরিদর্শনে যান দুর্গাপুর পশ্চিম এর বিধায়ক বিশ্বনাথ পারিয়াল, বুড়ো চেয়ারম্যান চন্দ্র শেখর বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মেয়র দিলীপ কুমার অগস্তি । যদিও এ ব্যাপারে সরব হয়েছেন বাঁকুড়া জেলার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার । তার মতে গত তিন বছর আগে একই ঘটনা ঘটে এবং সেই ঘটনা থেকে শিক্ষা নেয় নি এরা। ঠিকমতো ভাবে সারানি লকগেট কে । তবে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বনাথ পারিয়াল বাবু জানিয়েছেন যে তিন বছর আগে ভেঙে যাওয়া লোকটিকে যথেষ্ট ভালো ভাবে সারিয়ে তোলা হয়েছে । তবে এই ধরনের ঘটনা ঘটলো তা খতিয়ে দেখা হবে ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button