আবহাওয়ানিউজ

পুজোর মুখেই দুরন্ত শক্তি নিয়ে এগিয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘গতি’,যেসব অঞ্চলে পড়বে প্রভাব, সতর্ক করলো মৌসুম ভবন!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন :-গত ২০ মে রাজ্যের উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছিল বি-ধ্বং-সী ঝড় আম্ফান । তারপরে করোনার মতন ভয়াবহ পরিস্থিতি। দুই মিলিয়ে রীতিমতো মুখ থুবড়ে পড়েছিল রাজ্য । এই আম্ফান ক্ষতি করেছিল বহু সাধারণ মানুষের। তার সাথে সাথে ঘরছাড়া করেছিল লক্ষ লক্ষ মানুষের ।

Advertisement

শুধুমাত্র ঘরছাড়া নয় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ক্ষতি হয়েছিল অনেক সম্পত্তি। বড় বড় গাছ উপরে পড়েছিল। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গিয়েছিলেন অনেকে। তবে সেই রেস কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই ফের আরও একবার বড়োসড়ো ঝড়ের সম্মুখীন হতে চলেছে রাজ্য। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

Advertisement

ইতিমধ্যে আমরা জেনেছিলাম যে পুজোর আগেই রাজ্যের দিকে ধেয়ে আসছে আরো একবার বিধ্বংসী ঝড়” গতি” ।পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের জেরেই এই ঘূর্ণিঝড়ের অ-শ-নি সংকেত দিচ্ছে আবহাওয়া দফতর।এই ঝড় আরো শক্তিশালী রূপ নিয়ে অন্ধপ্রদেশ উপকূল দিয়ে প্রবেশ করবে সে রাজ্যে ।

Advertisement

থাকবে ঘণ্টায় ৬৫ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হওয়া তার সাথে ভারী বৃষ্টিপাত। সেই ঘূর্ণিঝড় গতি এর ইতিমধ্যে ল্যান্ডফল শুরু হয়ে গেছে । যার প্রভাবে ছিন্নভিন্ন হয়েছে অনেক এলাকা। দীর্ঘক্ষন সমুদ্রে থাকার ফলে ল্যান্ড ফলেরপ পরও শক্তি জুগিয়ে চলেছে গতি।

Advertisement

অন্ধ্র উপকূলের কাঁকিনাড়ার খুব কাছ দিয়ে বয়ে গেছে৷ ল্যান্ডফলের সময় এর গতি -র দাপট ছিল ঘণ্টায় ৭৫ কিলোমিটার । বিশাখাপত্তনম,নারাসপুর , কাঁকিনাড়ায় প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে৷ সবচেয়ে খারাপভাবে এই সাইক্লোনের দাপট ভুগছে এই এলাকাগুলিতেই৷ এই সাইক্লোন এর প্রভাব থেকে এবারের মতন রক্ষা পেয়েছে বাংলা।

Advertisement

তবে রক্ষা পায়নি উড়িষ্যা। উড়িষ্যা তো বেশ কিছু অঞ্চলে দেখা গেছে এই গতির প্রভাব । তবে এর জেরে মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, তেলেঙ্গানা, দক্ষিণ ছত্তিশগড়. দক্ষিণ মধ্যপ্রদেশ, গুজরাতের দক্ষিণ প্রান্ত, কোঙ্কন ,গোয়া, মুম্বইয়ের সাবআর্বে ১৪ ও ১৫ এই দুই দিন ধরেই বৃষ্টিপাত হবে । এমনটাই জানিয়েছেন হাওয়া অফিস ।

Advertisement

এর পাশাপাশি ঘণ্টায় প্রায় ৬০ থেকে ৭৫ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইছে অন্ধ্র উপকূলে এবং তার প্রভাব দেখা যাচ্ছে তার আশপাশের অঞ্চলের। তবে এখনো পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি প্রশাসন সতর্ক থেকেছে আগে থেকেই ।

Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button