নিউজভিডিও

মক্কার মসজিদের দেওয়াল ভে’ঙে ঢুকে গেলো গাড়ি! শুরু প্রবল উ’ত্তে’জনা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-বিভিন্ন ধর্মের জন্য বিভিন্ন পবিত্র স্থান আলাদা আলাদা ভাবে করা আছে এই পৃথিবীতে। যেমন হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষদের জন্য মন্দির মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষদের জন্য মসজিদ খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মানুষদের জন্য চার্চ গির্জা । এরকমভাবে ভাবে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের জন্য তৈরি করেছে বিভিন্ন পবিত্র স্থান ।ঠিক তেমনি মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষদের পবিত্র স্থান হল মক্কা।

শোনা যায় যে তাদের গ্রন্থ অনুযায়ী জীবনে একবার অন্তত মক্কা পরিদর্শনে যেতে হয় তাহলে মেলে পুন্য । এই মক্কা মুসলিম ধর্মাবলম্বী সকল মানুষের কাছে প্রিয় তার পাশাপাশি পবিত্র । কিন্তু সেই পবিত্র জায়গায় ঘটে গেল এমন এক ঘটনা যা ভাবিয়ে তুলেছে সকলকে ।

পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে আমরা বিভিন্ন জঙ্গি হানার ঘটনা খবর এর মাধ্যমে দেখে থাকি। জঙ্গিরা বিভিন্ন জায়গায় তাদের প্রভাব বিস্তার করার জন্য হামলা চালিয়ে থাকে। তাই যেকোনো ধরনের ঘটনা ঘটলে আমরা সেটাকে প্রথমেই পরীক্ষা করে দেখি যে সেটি জঙ্গির সাথে যুক্ত কিনা। ঠিক তেমনই একটি ঘটনা ঘটল মক্কার মসজিদ যা দেখে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে যায় মক্কার বাসিন্দারা ।

প্রায় রাত সাড়ে দশটা নাগাদ মক্কা মসজিদের দেয়ালে ধাক্কা মারে একটি গাড়ি যা প্রাথমিকভাবে জ-ঙ্গী হামলার সাথে সম্পর্কযুক্ত বলে মনে করা হয়েছিল কিন্তু পরে জানা গিয়েছে অতিরিক্ত গতিতে থাকার জন্য গাড়ি চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিলেন । যদিও নিরাপত্তারক্ষীরা সেই গাড়ি চালককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে তবুও একটা বড়সড় আ-ত-ঙ্ক ছড়িয়েছে সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ।

পুরো ঘটনা ধরা পড়েছে মসজিদের বিভিন্ন জায়গায় লাগানো সিসিটিভির ফুটেজে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, প্রথমে মসজিদের বাইরের অংশের একটি পাঁচিল ভেঙে ভিতরে ঢুকে পড়ে গাড়িটি। তার পর সেই গাড়িটি মসজিদের ভিতরের একটি দরজাও ভেঙে দেয়। তবে সেই চালকের পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতির জন্য গত সাত মাসে মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে নামাজ আদায় করেননি কেউ। তবে সম্প্রতি সেই মসজিদে ১৫ হাজার তীর্থযাত্রীকে নামাজ আদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। এর পর তীর্থযাত্রীদের সংখ্যা ২০ হাজার করা হবে বলেও মসজিদ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। তবে সেখানে সবরকম নিয়ম-কানুন মানতে হবে সবাইকে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button