নিউজপলিটিক্স

“দায়িত্বপূর্ণ লোকেদের অন্তত একটু বুঝেশুনে সতর্ক হয়ে কথা বলা উচিত”-অনুপমকে কটাক্ষ মুকুল রায়ের!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন:-রাজনৈতিক মহলের প্রস্তুতি এই মুহূর্তে চোখে পড়ার মতন । তার কারণ একটি । তার কারণ হলো সামনে বিধানসভার ভোট। আসন্ন বিধানসভার ভোট কে মাথায় রেখে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে হোক বা মাঠে নেমেই হোক চালাচ্ছে কর্মসূচি । হচ্ছে বড় সড়ো জমায়েত। কিন্তু গত রবিবার ঘটেছে এমন একটি ঘটনা যাকে ঘিরে ফের প্রশ্নের মুখে পড়ে বঙ্গ ব বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক অনুপম হাজরা । কি বলেছেন তিনি? এবং কেন জড়ালেন বিতর্কে ?আসুন দেখে নেওয়া যাক ।

Advertisement

শনিবার বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন অনুপম হাজরা। তিনি বারুইপুরে দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দেন । যদিও সেখানে সমর্থকদের কারুর মুখে মাস্ক ছিল না । এমনকি অনুপম হাজরার মুখেও । সামাজিক দূরত্ব না মেনেই চলছে দেয়ার কর্মসূচি, প্রচার । বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা তিনি করে বসলেন বিস্ফোরক মন্তব্য । যাকে ঘিরে শুরু হয় বিতর্ক। তবে তার এই বিতর্ককে ঘিরেও কিছুটা হলেও সাবধান করেছেন তারই দলীয় নেতা।

Advertisement

রবিবার সাংবাদিকরা তাকে নিয়ম বিধি লঙ্ঘনের জন্য প্রশ্ন করেন । তিনি বলেন যে আমার যদি কোরোনা হয় তবে সবার আগে জড়িয়ে ধরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ” তারপরে শুরু হয়ে যায় নেটদুনিয়ায় শোরগোল , বিতর্ক , কটাক্ষের পর কটাক্ষ। এরপর শিলিগুড়ি থানায় অনুপম হাজরা বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন দার্জিলিং জেলার উদ্বাস্তু সেলের সভাপতি মুকুল হাজরা এবং রীতিমত শিলিগুড়ি থানা সামনে বিক্ষো-ভ দেখায় তার কর্মীরা অনুপম রায়ের গ্রেফতারের দাবিতে।

Advertisement

ওইদিন মুকুল হাজরা বলেন ” দায়িত্বপূর্ণ পদে থাকলে তার বাকস্বাধীনতা নিয়ে সচেতন থাকা দরকার।” এর পাশাপাশি অনুপম হাজরা কে যখন জিজ্ঞেস করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী কে কেন জড়িয়ে ধরবেন তখণ তার উত্তরে তিনি বলেন যে” মুখ্যমন্ত্রীকে অন্তত একবার বোঝা উচিত যারা করোনার কারণে মারা গেছে তাদের পরিবারের মানসিক অবস্থাটা কি রকম হয়। তিনি সেটা জানেন না ও বুঝেন না ।”

Advertisement

অনুপম হাজরা এই বক্তব্যের পর রীতিমতো নিজের দূরত্ব স্পষ্ট করে দিয়েছেন তারই দলের বিভিন্ন নেতা ও কর্মীরা । এ বিষয়ে সরব হয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী ।তিনি বলেন ” মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সম্পর্কে আমার অনেক অভিযোগ আছে এবং আগামী দিনেও থাকবে । অভিযোগ করাটা আমার অধিকার । কিন্তু কোনো অশ্লীল ভাষায় তাকে মন্তব্য করার অধিকার আমার নেই” ।

Advertisement

এর পাশাপাশি তিনি বলেন ” কোন মহিলাকে অশ্লী-ল ভাষা আ-ক্র-ম-ণ করা মানে বাঙালি সংস্কৃতি কেউ অ-পমা-ন করা যা মোটেও ভালো দেখায় না” । এর পাল্টা প্রতিক্রিয়া হিসেবে অনুপম হাজরা জানান “যদি আমার বক্তব্য এর কারণে আমার বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয় তাহলে মুখ্যমন্ত্রীর বি-রু-দ্ধে এফআইআর করা দরকার। কারণ তিনিও দেশের প্রধানমন্ত্রীকে এক সময় বলেছিলেন কোমরে দড়ি বেঁধে ঘুরাবো। যা মুখ্যমন্ত্রী হয়ে বলাটা শোভা পায় না ” ।

Advertisement
Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button