নিউজপলিটিক্স

দলের পদ হারানোর পর একরাশ ক্ষো’ভ নিয়ে দিল্লী উড়ে গেলেন রাহুল সিনহা, এয়ারপোর্টে বিক্ষো’ভ জানালেন তারই অনুগামীরা!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন :- রাজ্যের বিধানসভা ভোট কে ঘিরে এই মুহূর্তে প্রস্তুতির সাথে চলছে ঘোর জল্পনাও । রাজনৈতিক মহলে দেখা গেছে প আবছা ছবিও। ঠিক কোন দলে কে যোগ দিতে চলেছে বা কাকে কোন দল থেকে বহিষ্কার করা হচ্ছে তা এখনো পর্যন্ত পুরোপুরি ভাবে স্পষ্ট নয়।

Advertisement

কিন্তু সম্প্রতি পদ খুইয়ে যে রাহুল সিনহা ক্ষো-ভ প্রকাশ করেছিলেন খোদ বিজেপির উপর সেই রাহুল সিনহা বিজেপির বৈঠকে যোগ দিতে গেলেন দিল্লিতে । এমনটাই সূত্রের খবর ।তবে তার এই সিদ্ধান্ত ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে তারই দলের মধ্যে । তার পাশাপাশি সমালোচনা শুরু হয়েছে অন্যান্য রাজনৈতিক মহলে।

Advertisement

উল্লেখ্য, রাজ্য সভাপতি পদের মেয়াদ ফুরোনোর পরে বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক হন রাহুল। গত শনিবার প্রকাশিত বিজেপির সর্বভারতীয় পদাধিকারীর তালিকায় তিনি বাদ পড়েছেন। তাঁর জায়গায় আনা হয়েছে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে আসা অনুপম হাজরাকে। এ নিয়ে রাহুল প্রকাশ্যে ক্ষো-ভ জানান।

Advertisement

এর পাশাপাশি তিনি আরো জানান যে ” দীর্ঘ চল্লিশ বছর ধরে বিজেপি সঙ্গে যুক্ত। দল আমাকে ভালো পুরস্কার দিয়েছে। আমি কোন সমালোচনা করবো না ।আমার যা বলার দশ বারো দিনের মধ্যে আমি উত্তর দেব। তৃণমূল থেকে আসা কোনো নেতার জন্য আমাকে পথ খোয়াতে হলো। ” ঠিক এরপরই দলীয় বৈঠকে রাহুল সিনহার যোগ দেওয়া কে নিয়ে কৌতূহল এর মাত্রা যেন আরো বেড়ে উঠলো ।

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য রাজ্য সভাপতির মেয়াদ ফুরানোর পর বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক হন রাহুল সিনহা । কিন্তু শনিবার সেই পদ আর থাকে না । তৃণমূল থেকে বিজেপিতে আশা অনুপম হাজরা কে দেওয়া হয় সেই পথ। সে বিষয়ে তিনি অবশ্য ক্ষো’ভ প্রকাশ করেছেন মিডিয়ার সামনে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক ডাকেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত সাহা এবং কেন্দ্রীয় সভাপতি জগতপ্রকাস নাড্ডা ।

Advertisement

সেই দলীয় বৈঠকে যোগ দেবেন দিলীপ ঘোষ ,মুকুল রায় ,অনুপম হাজরা সহ আরো অনেকে এমনটাই দলীয় সূত্রে খবর। তবে সেই বৈঠকে রাহুল সিনহা যোগ দেবেন কিনা সে বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেনি। কিন্তু দেখা গেল এক অবাক কান্ড । বুধবার দিন রাতে তাকে দেখা গেল কলকাতা বিমানবন্দরে ।

Advertisement

সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন ” তিনি দলীয় বৈঠকে যোগ দিতে দিল্লি যাচ্ছেন “। যদিও তার অনুগামীরা তাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় । সেই সূত্রে তিনি জানান “তারা আবেগপ্রবণ হয়ে এরকম কাজ করেছে । সত্যের জয় হবেই”। এর পাশাপাশি অন্যান্য রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য যদিও ওই বিক্ষো’ভে’র ঘটনা ছিল পরিকল্পনামাফিক।

Advertisement

বাবরি মসজিদ নিয়ে আদালতের রায় তিনি খুশি এবং তিনি এটাও বলেন যে বাবরি মসজিদ ধ্বং-স ছিল একটি গণরোষের বহিঃপ্রকাশ ছিলো । লাল কৃষ্ণ আডবাণী কে ষড়যন্ত্রে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয়েছিল তা এখন আর হয়ে উঠলো না । তবে বৈঠকে যোগ দেওয়া নিয়ে ঠিক কি হতে চলেছে আগামী দিনে সেই নিয়ে কৌতুহল অনেকের ।

Advertisement
Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button