নিউজ

ফের কি রাজ্যে শুরু হচ্ছে লকডাউন? জানুন ভাইরাল খবরের আসল সত্যতা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- দেশ জুড়ে ভ-য়া-বহ পরিস্থিতি এখনো জারি রয়েছে। শুধুমাত্র যে দেশ এ তা কিন্তু নয় । দেশের পাশাপাশি রাজ্য রয়েছে ভয়াবহ পরিস্থিতি । এরইমধ্যে বাঙালির শ্রেষ্ঠ পুজো দুর্গা পুজো করার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু দূর্গা পূজার পরের পরিস্থিতি কিরকম হতে চলেছে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন অনেকেই।

অন্যদিকে প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে সং-ক্র-ম-ণে গ্রাফ। এই পরিস্থিতি থেকে কিভাবে সামাল দেবে সে প্রশ্ন উঠছে অনেক অংশে ।তবে অনেকের মতে দুর্গাপূজা এবং কালী পুজো শেষ হয়ে যাওয়ার পর রাজ্যে হতে পারে লকডাউন।

তবে বাঙালির এখনো পুজোর আমেজ শেষ হয়নি। দুর্গাপূজোর বিসর্জন হয়ে গেলেও নতুন করে লক্ষ্মীপুজো এবং কালী পুজোর আনন্দে ফের আরও একবার মেতে উঠতে চলেছে এ রাজ্যের বাঙালিরা । ফলে কার্যত সংক্রমণের হার ব্যাপকভাবে ছড়াতে পারে এরকম দুশ্চিন্তায় রয়েছে রাজ্যের প্রশাসন ।

যদিও পূজামণ্ডপগুলোতে নো এন্ট্রি’ বোর্ড ছিল তবুও পাড়ার পুজো প্যান্ডেল এবং রেস্তোরাঁতে দেখা গেছে ভীর । সেই কারণে প্রশাসন বেশ উদ্বিগ্ন রয়েছেন যে পুজোর পর সং-ক্র-ম-ণে পরিস্থিতি কিরকম দাঁড়ায় । তাই অনেকের মনে হয়েছে যে পুজোর পর রাজ্যজুড়ে হতে পারে লকডাউন ।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি খবর ছড়িয়েছে যেখানে বলা হচ্ছে যে আগামী ৪৮ ঘণ্টা লকডাউন থাকবে রাজ্যজুড়ে। এর পাশাপাশি বন্ধ থাকবে সমস্ত বাজার ট্রেন এবং বিমান পরিষেবা ।শুধুমাত্র জরুরী পরিষেবা গুলি খোলা থাকবে। এই খবর সামনে আশাতে ইতিমধ্যে তড়িঘড়ি করে লকডাউন এর প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিয়েছিল রাজ্যবাসী। কিন্তু পরে জানা যায় যে সেটি একটি ভুয়ো খবর।

সরাসরি নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে কলকাতা পুলিশ জানিয়ে দেয় যে এধরনের লকডাউনের খবর একেবারে গুজব৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় যে মেসেজটি ভাইরাল হচ্ছে তা নিয়ে অযথা মানুষের মধ্যে ভীতি বাড়ছে এবং সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন৷

এমন ভুয়ো খবর সম্প্রচার করলে বা এই ধরনের ভুয়ো মেসেজ ছড়ালে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁ-শি-য়া-রি দিয়েছে কলকাতা পুলিশ৷ এটি একটি পুরনো মেসেজ যা নতুন করে ছড়িয়ে দিয়ে মানুষের মনে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা করা হচ্ছে৷ সাফ জানিয়েছে কলকাতা পুলিশ৷ জানানো হয়েছে যে এই মেসেজে উল্লেখ করা কন্টেইনমেন্ট জোনের সঙ্গে রাজ্যের দেওয়া তালিকার কোনও মিল নেই৷

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button