নিউজ

ব্যাঙ্কের চাকরি ছেড়ে মাত্র ৪৮ হাজার টাকা দিয়ে এই ব্যবসা শুরু করে আজ কোটি’পতি যুবক, শুরু করতে পারেন আপনিও!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন :-কথাতে আছে” পড়াশোনা করে যে গাড়ি ঘোড়া চড়ে সে” অর্থাৎ আপনি যদি ভালো মতন মন দিয়ে পড়াশোনা করেন এবং জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেন তাহলে একসময় জীবন সুখ ও সমৃদ্ধিতে ভরে যাবে। জীবন বিলাসবহুল হয়ে উঠবে। এবং এই জীবন বিলাসবহুল হয়ে ওঠার পেছনে একটা বড় পরিমাণ হাত থাকে চাকরির । অর্থাৎ আপনি যদি চাকরি না করেন তাহলে হয়তো কোনদিন বিলাসবহুল জীবন হয়ে উঠতে পারবে না । কিন্তু এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল।

Advertisement

এমন অনেক মানুষ আছেন যারা চাকরি ছেড়ে দিয়ে ব্যবসায় মনোনিবেশ করেছে । এবং একসময় ব্যবসা টি সফলতার পথে হেঁটেছে। আজ সেরকমই একটি ব্যবসার গল্প বলতে চলেছি ।তথাকথিত দশটা পাঁচটার চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়ে সাহসিকতার সাথে ব্যবসা করার মতন আনন্দ হয়তো আর কোথাও নেই । কিন্তু ভয় থাকে যদি কোনো কারণে বিফলে চলে যায়। তাই হয়তো অনেকে এই সাহসী পদক্ষেপ নিতে পারেন না। কিন্তু নিয়েছেন মোঃ রাসেল ।

Advertisement

যিনি ছয় বছর এর একটি ব্যাংকের চাকরি ছেড়ে একটি ডায়াপারের ব্যবসা শুরু করেন এবং কোম্পানির নাম দেন ইভ্যালি ।তিনি ব্যাঙ্কের চাকরি ছেড়ে ব্যবসার কাজে মনোযোগ দিয়ে তিনি উদ্যোক্তা হলেন বিগ অনলাইন শপিং মল ইভ্যালির। তার প্রথম ব্যবসা শুরু হয় ডায়াপার ব্যবসা দিয়ে। ২০১৭ সালে তিনি ব্যবসা করতে করতে প্রথম বড়ো কিছুর চিন্তাভাবনা করেন। সেখান থেকেই ইভ্যালির যাত্রা।

Advertisement

ইভ্যালি গড়ে তোলা হয়েছে আলিবাবা ,অ্যামাজন এর মতন মডেলিং এর সাহায্যে । যেখানে গ্রাহকরা সরাসরি কথা বলতে পারবে ডেলিভারি বয়ের সাথে একটি নির্দিষ্ট অপশনের মাধ্যমে। এতে বিশ্বাস আরো অনেকটাই বাড়বে বলে মনে করেছেন তিনি ।তিনি বলেন অনেকেই পরিকল্পনার অভাবে ,

Advertisement

নির্দেশনার অভাবে , পর্যাপ্ত বিনিয়োগ এর অ-ভাবে ব্যবসা শুরু করার পর সেই ব্যবসা ব-ন্ধ হয়ে যায় তারা যেন হ-তাশ না হয়ে যেখানে ব্যবসা বন্ধ হয়েগিয়েছিল সেখান থেকেই আবার শুরু করেন। ইভ্যালি এমন একটা সুযোগ যেখানে আপনারা আপনাদের ছোট ব্যাবসা ইভ্যালির অন্তর্ভুক্ত করে আবার নতুন করে গড়ে তুলুন। কাজেই নতুন প্রজন্মের কাছে তিনি একটা ইনস্পিরেশন যা নতুন প্রজন্মকে নিজের স্বপ্ন নিয়ে। বাচঁতে শিখিয়েছেন ।

Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button