নিউজ

‘ইসলামে মুসলমান হয়ে অন্য ধর্মের ঐতিহ্য পালন করা হারাম’, দেবী দূর্গা সাজায় এবার মাওলানাদের কটাক্ষের মুখে নুসরত!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-কথাটা আছে ধর্ম এমন এক অ-স্ত্র যা মানুষকে এক করে রাখতে পারে আবার আনতে পারে মানুষের মধ্যে লক্ষ মাইল দূরত্ব । আমরা বিভিন্ন সময় শুনে থাকি ধর্মের রাজনীতি অর্থাৎ যেখানে ধর্ম কে কাজে লাগিয়ে রাজনীতি করা হয় । এবার সেরকমই কিছু একটা ঘটল এই বাংলার এক সাংসদের সাথে। তার নাম নুসরাত জাহান। যে নুসরাত জাহান কে আপনারা দেখেছেন বিভিন্ন সময় প্রতিবাদী সুরে ।

কখনো কখনো নিজের খামখেয়ালি মেজাজে ধরা দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। সেই অভিনেত্রীর কাজকর্মের বি-রু-দ্ধে এবার প্রশ্ন তুললেন অন্য কেউ একজন। কে সে? কি সেই প্রশ্ন ? আসুন দেখে নেওয়া যাক।বেশ কিছুদিন আগে নুসরাত তার নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল এ একটি ছবি পোস্ট করেন যাকে ঘিরে শুরু হয় এই বিতর্ক ।

সেখানে দেখা যায় নুসরাত জাহান মা দুর্গার রূপে সেজে আছেন । এরপর নুসরত জাহানের এই কর্মকাণ্ডের বি-রু-দ্ধে জমিয়ত দাবতুল মুসলিমিন এর সংরক্ষক তথা প্রসিদ্ধ আলিম-এ-দীন মৌলানা কারি ইসহাক গোরা বলেছেন যে, আমাদের ধর্ম কারোর ব্যাক্তিগত জীবনে দখল দেওয়ার অনুমতি দেয় না।

আর নুসরত জাহানের কথা বললে শুধু এটুকুই বলতে পারি যে, উনি সবসময় বিতর্কে ঘিরে থাকেন। উনি বলেন, নুসরত জাহানের দেবী দুর্গার রুপ ধারণ করা শোভা পায় না। এরজন্য ওনাকে আল্লাহর কাছে তওবা করা উচিৎ।

এর পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে নুসরাত জাহান সবার কাছে অপছন্দের কারণ তার বিতর্কিত কাজ । আমাদের মুসলিম ধর্মের এমন কিছু বাধ্যবাধকতা আছে যা কোন মুসলিমই করতে পারে না ।কিন্তু নুসরাত জাহান তার কোনো পরোয়া করে না । তার এই বক্তব্য ঘিরে শুরু হয়েছে ঘোর জল্পনা ।

এছাড়া মাদ্রাসার জামিয়া শাইখুল হিন্দের মোহতামিম মাওলানা মুফতি আসাদ কাশামী বলেন, ইসলামে অন্য ধর্মের ঐতিহ্য পালন করার নিষেধাজ্ঞা আছে, কিন্তু নুসরত জাহান লাগাতার এসব করে যাচ্ছে। এগুলো ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি তার এই পোস্টকে ঘিরে এই বিতর্কিত মন্তব্যে রীতিমতো আরো অনেক প্রশ্ন উঠে আসছে রাজনৈতিক মহল থেকে সাধারণ মানুষের মনে । তবে এ বিষয়ে এখনো পর্যন্ত বাংলার অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরাত জাহানের থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button