নিউজ

‘শ্রাবন্তীর কি সত্যিই ডিভোর্স হতে চলেছে? রোশনের সাথে সম্পর্ক নিয়ে এবার মুখ খুলে সত্যিটা বলে ফেললেন শ্রাবন্তী নিজেই, ভাইরাল!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বাংলার অভিনয় জগতে এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম হল শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় । চ্যাম্পিয়ন সিনেমা দিয়ে তার অভিনয় জগৎ শুরু হয়েছে একথা আমাদের সকলের জানা। কিন্তু তার জীবনে নতুন ভাবে মোড় নিতে শুরু করে যখন তার বয়স ১৬ বছর । অর্থাৎ তিনি ১৬ বছর বয়সে পরিচালক রাজীব চট্টোপাধ্যায় কি বিয়ে করে নেন এবং জন্ম নেয় একটি ছোট্ট পুত্রসন্তান ঝিনুক। তারপরে কেমন জানি এলোমেলো হয়ে গেল তার জীবন।

১৬ বছর বয়সে রাজীব চট্টোপাধ্যায় কি বিয়ে করার পর ঝিনুক জন্ম নেয় ঠিক তার কয়েক বছরের মধ্যেই তাদের মধ্যে শুরু হয় মনোমালিন্য । এবং যার জেরে ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক । অবশেষে ২০১৬ সালে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিচ্ছেদ হয় তাদের । তার পরে তিনি আরও একবার প্রেমে লিপ্ত হন মডেলার কিযান বিরাজের সাথে। এক বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সেই সম্পর্কেও ধরে ভাঙ্গন। অবশেষে ২০১৯ সালে এপ্রিল মাসের তৃতীয় বারের জন্য বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় এবং যাকে বিয়ে করেন তিনি হলেন রোশন সিং।

তারপর বেশ ছান্দিক গতিতে চলছিল জীবন । সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছিলেন দুজনে। কিন্তু কোথাও যেন সেই সম্পর্কেও পরল নজর। সম্প্রতি শ্রাবন্তীর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল আপনি যদি একবার উঁকি মেরে আসেন তাহলে দেখবেন যে বাকি সবার সাথে ছবি থাকলেও জীবনসঙ্গী রোশন সিংয়ের সঙ্গে নেই কোন ছবি সমস্ত ছবি ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন ? সেখান থেকে জন্ম নিয়েছে প্রশ্ন ।আর সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে মুখোমুখি হওয়া গেল এক বিস্ফোরক মন্তব্যে সামনে।

এক সাংবাদিক জিজ্ঞাসাবাদে রোশন সিং জানিয়েছেন যে একথা সত্য যে আমরা বেশ কয়েকদিন ধরে আলাদা হয়েছি, তবে এ ব্যাপারে আমি আর বিশেষ কোনো মন্তব্য করতে রাজি নয় । কারণ অতীতের সম্পর্ককে আমি সম্মান করি ” । তাহলে কি তৃতীয় বারের জন্য সম্পর্ক ভাঙতে চলেছে ? প্রশ্ন ছিল অনেকের ।

সেই প্রশ্নের উত্তর দেন শ্রাবন্তী নিজে । তিনি বলেন যে ” একথা ঠিক যে আমাদের সম্পর্কে হানিমুন শেষ কিন্তু আমি বিশ্বাসী যে আমাদের সম্পর্ক আবার নতুনভাবে জোড়া লাগবে। আমরা আমাদের নিজেদের সমস্যাকে নিজেদের মতো করে গুছিয়ে নেব ” । তবুও অনুগামী মহলের মধ্যে এখনো পর্যন্ত থেকে আছে প্রশ্ন.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button