নিউজ

অগস্টে বাংলায় ধ,র্ষ,ণ-২২৩, অ,পহ,র,ণ-৬৩৯, তথ্যপ্রকাশ রাজ্যপালের; – রেগে গেলেন মমতা?

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশ জুড়ে চলছে হাথড়াস কান্ডের আফটারশক। অভিযুক্তদের নিয়ে পক্ষ বি-প-ক্ষ- দুরকমের মন্তব্যে সারাদেশ সরগরম। এর সঙ্গেই বিভিন্ন রাজ্যের নারী নি-র্যা-ত-নের মা-ম-লা নিয়ে বাক বিতর্ক তুঙ্গে।

সেই ধারা বজায় রেখেই, নারী নি-র্যাত-নের অভি-যো-গ নিয়ে রাজ্য-রাজ্যপাল সং-ঘা-ত। টুইটারে টুইট করে ধ-র্ষ-ণ ও অপরাধের স্ট্যাটিসটিক্স দেন জগদীপ ধনখড়। অপরদিকে রাজ্যপালের সেই হিসেব নাকচ করে দেন স্বরাষ্ট্র দফতর। দপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়,”রাজ্যপালের তথ্যে অসংগতি রয়েছে।” প্রত্যুত্তরে রাজ্যপাল জানান, “ধ-র্ষ-ণ ও অ-পহর-ণে-র পরিসংখ্যান পাঠিয়েছিল প্রশাসনই।”

মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় টুইট করে জানান,”অগস্টে রাজ্যে ধ-র্ষ-ণে-র ঘটনা ২২৩টি। অপহরণের সংখ্যা ৬৩৯। রাজ্যে মহিলাদের উপরে অপরাধের রিপোর্ট উদ্বেগজনক। সব জায়গায় আ-গু-ন ছড়িয়ে পড়ার আগে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ে পদক্ষেপ করতে হবে পুলিসকে।”

রাজ্যপালের এই অভিযোগের পরেই পশ্চিমবঙ্গের স্বরাষ্ট্র দফতর টুইটারে জানায়, “ধ-র্ষ-ণ ও অ-প-হর-ণ নিয়ে রাজ্যপালের তথ্য অফিসিয়াল পরিসংখ্যান বা রিপোর্টের ভিত্তিতে দেওয়া হয়নি। তা সঠিক নয়। বিভ্রান্তিকর। ভিত্তিহীন তথ্য দেওয়া হয়েছে।”

তারপরেই রাজ্যপালের ফের টুইট করেন। তিনি বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এমন বিভ্রান্তিকর তথ্যে অবাক হচ্ছি। ক্ষমা চেয়ে সংশোধন করুন। ২২৩টি ধ-র্ষ-ণ ও ৬৩৯টি অপহরণের ঘটনার রিপোর্ট পাঠানো হয়েছিল প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগ থেকে।”

আরো এক ধাপ এগিয়ে রাজ্যপালের তীব্র অভিযোগ,’সাংবিধানিক অফিসকে অপমানিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। জনস্বার্থে এই ধরনের কাজকে রেয়াত করা হবে না। নিশ্চিতভাবে পদক্ষেপ করা হবে। আশা করি, মিথ্যার মতোই দ্রুত সামনে আসবে সত্য।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button