নিউজভিডিও

বাড়ির ছাদে টবে বা বাড়ির উঠোনে এই পদ্ধতিতে বেদানা চাষ করলে হবে দারুন ফল, যেভাবে লাগাতে হবে চারা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-সামনে শীতকালের আমেজ আসছে এবং শীতের সময় বিভিন্ন ধরনের ফুল ফল ও ফসল বাজারে দেখতে পাওয়া যায় যা আমাদের অধিক প্রিয় । বছরই নির্দিষ্ট সময়ে পাওয়া যায় বলে সারা বছর ধরে এই ফলের আসায় বা ফুলের আশায় থাকি আমরা ।

ঠিক সেরকমই শীতকালীন একটি অধিক জনপ্রিয় ফল হল বেদানা । বাজারে বেদনার দাম আকাশছোঁয়া কিন্তু আবার এগুলি আমাদের অধিক প্রিয় হয়ে থাকে । তাহলে উপায় কি? উপায় একটাই বাড়ির ছাদে যদি বেদানা চাষ করা যায়। এটা কি সম্ভব ? অবশ্যই সম্ভব ।

বেদেনা সাধারণত অল্প র-ক্ত জনিত সমস্ত রকমের রোগ ব্যাধি দূরীকরণের সাহায্য করে । এর পাশাপাশি রক্তে শতকরা ভাগ সঠিক রাখতে বেদনার প্রয়োজন হয়। হার্টজনিত যেকোনো সমস্যা দূরীকরণে বেদনা আমাদের কাজে লাগে তাই বাড়িতে যদি বেদনা চাষ করা যায় এই শীতকালে তাহলে ব্যাপারটা জমে যাবে। তো আসুন দেখে নেওয়া যাক কিভাবে বাড়ির মধ্যে বেদানা চাষ করা যাবে ।

বাড়ির ছাদে বেদানা চাষ করার জন্য আপনাকে বেশ কয়েকটি টব কিনে আনতে হবে এবং এর মধ্যে তৈরি করতে হবে মাটি। বেলে দোআঁশ মাটি পটাশিয়াম ফসফরাস এবং হাড়ের গুঁড়ো মিশিয়ে এক জৈব পদ্ধতিতে তৈরি করতে হবে বেদনা চাষের উপযুক্ত মাটি। এবং সেই মাটির মধ্যে জল দিয়ে ১০ থেকে ১৫ দিন রেখে দিতে হবে। যেখানে বাড়ির পর্যাপ্ত পরিমাণে রোদ পৌঁছায় । ৪-৫-দিন পর আবার ওলট-পালট করে রেখে দিতে হবে তিন চার দিনের জন্য যাতে পুরোপুরিভাবে মাটি তৈরি হয়ে যায় এবং ঝরঝরে হয়ে যায়।

এরপর একটি সুস্থ সবল কলমের চারা সেই টবের মধ্যে প্রতিস্থাপন করতে হবে। এবং নিয়মিত পরিচর্যা করতে হবে । গাছটি যাতে নেতিয়ে না পড়ে তার জন্য একটি কাঠি দিয়ে গাছের কান্ড টিকে আপনি চাইলে বেঁধে রাখতে পারেন । এবং বাড়ির যেখানে পর্যাপ্ত পরিমাণে সূর্যালোক পৌঁছে যাব সেই জায়গাতে রেখে দিন এটিকে।

তিন থেকে চার মাস পর যখন বেদানা গাছ বড় হয়ে উঠবে তখন আপনাকে আরো বেশি ভাবে পরিচর্যা করতে হবে। প্রতি সপ্তাহে তখন সরষের খোল দিতে হবে গাছের গোড়াতে । এর পাশাপাশি যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে যে গাছের গোড়ায় যেন কোন কারনে জল জমতে না পারে। তার জন্য আগে থেকেই টবের মধ্যে অতিরিক্ত বেশ কয়েকটি ছিদ্র করে নেওয়া ভালো। এই পদ্ধতিতে চাষ করলে আপনি খুব সহজেই পরিমাণে বেদেনা পাবেন বাড়িতে বসে ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button