নিউজ

‘দলিতদের সমব্যাথী হলে হাথরসে গেলেন না কেন?’ অমিত শাহকে কটাক্ষ অধীরের

নিজস্ব প্রতিবেদন :-সামনে বিধানসভার ভোট এবং এই ভোট ঠিক করে দেবে যে কে হতে চলেছে আগামী দিনে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী । মুখ্যমন্ত্রী আসন পেতে লড়াই কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে উঠছে প্রতিদিন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির প্রস্তুতি ইতিমধ্যে চোখে পড়ার মতন ।

মাঠে নেমে কাজ শুরু করে দিয়েছেন প্রত্যেক রাজনৈতিক কর্মীরা । যেনতেন প্রকারে দখল করতে হবে বাংলার শাসন। হতে হবে আগামী দিনে বাংলা শা-স-ক দল। বাংলায় শাসন দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বিজেপি। যদিও বিজেপিকে এই মুহূর্তে বাংলা বি-রো-ধী দল হিসেবে চেনে অনেকে।

ভোটের আগে দলীয় কর্মীদের চাঙ্গা করতে এবং নিজেদের আসন আরো শক্ত করতে রাজ্যের মাটিতে পা রেখেছেন ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু অমিত রাজ্যের মাটিতে পা রাখা ঘটনাটি মোটেও ভাল চোখে নেননি বি-রো-ধী দলগুলি ।

এর আগে আমরা দেখেছিলাম এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল নেতা তথা অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী কটাক্ষ করে টুইট করেছিলেন । তার পাশাপাশি নুসরাত জাহান সরব হয়েছিলেন অমিত শাহ এর এই আগমনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে। এবার সেই তালিকায় নাম জুড়লেন কংগ্রেস এবং বাম।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত বুধবার রাতে কলকাতা বিমানবন্দরে নামেন অমিত শাহ। তারপর সেখান থেকে রাজারহাট হোটেলে যান। বৃহস্পতিবার সকালে চপারে করে তিনি পাড়ি দেন বাঁকুড়া । সেখানে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং দুপুরবেলা মধ্যাহ্নভোজন কোন এক আদিবাসী সম্প্রদায়ের বাড়িতে। আর সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে চাঞ্চল্য এসেছে কটাক্ষ।

এ ব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেছেন যে ” যারা সোনার ভারতবর্ষ করবে বলেছিল, তারা সোনার ভারতবর্ষকে আজ সাম্প্রদায়িক ভারতে রূপান্তরিত করেছে। আপনি বলছেন দলিতদের বাড়িতে খাবেন, দলিতদের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করবেন। আপনি হাথরসে গেলেন না, এখানে কেন এসেছেন?

এর পাশাপাশি রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন যে হাতরাস কান্ডে যখন অমিত শাহের লোক কাউকে সেই পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে অনুমতি দিলেন না সেই অমিত শাহ কিভাবে বাংলার মাটিতে এসে আদিবাসী সম্প্রদায় বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজন করলেন ? তাহলে কি এসব শুধুমাত্র ফটোশুটের জন্য ?ওদের টার্গেট করছে মানুষ। মানুষই ওদের লক্ষ্যভেদ করবে।’ অমিত শাহের বঙ্গ সফর এখন রীতিমত সমালোচনার মুখে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button