নিউজ

“পুলিশ ঠিক থাকলে আমার ছেলেকে আজ এইভাবে প্রা’ণ দিতে হতোনা”- CBI ত’দ’ন্ত চেয়ে বললেন পালঘরে মৃ’ত সাধুর মা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-গত ১৬ এপ্রিল পাল ঘরে ঘটে গিয়েছিল এমন এক ম-র্মা-ন্তি-ক ঘটনা যার সাক্ষী ছিল গোটা দেশ। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ছড়ায় দেশজুড়ে । গুরুদেবের শে-ষকৃ-ত্য সম্পন্ন করে তিনজন ব্যক্তি একটি গ্রামের মধ্যে দিয়ে ফিরছিলেন রাত্রেবেলা। কিন্তু গ্রামবাসিরা তাদেরকে বাচ্চা চোর সন্দেহ করে আটক করে এবং গণপিটুনি দেয় । সেই গণপিটুনিতে মারা যান সেই তিনজন ব্যক্তি ।তাদের মধ্যে একজনের বয়স ৭৫ বছর এবং আরো একজনের বয়স ৩৫ বছর ছিল । ৩৫ বছর ব্যক্তির নাম ছিল সুশীলগিরি মহারাজ ।

তবে এই ঘটনা কিছুদিন আগে ওই গ্রামে কেউ একটি গুজব রটেছিল যে রাতের বেলা বাচ্চা চোর গ্রামে ঘোরাফেরা করছে । তাই একদিন গ্রামবাসীরা সবাই মিলে ওঁত পেতে বসে থাকে যে কখন বাচ্চা চোরেরা গ্রামে আসবে এবং তাদের কে হাতেনাতে ধরবে সেই গ্রামবাসীরা। কিন্তু আদতে এরূপ কোন ঘটনাই ঘটেনি।

এবং দুর্ভাগ্যবশত সেদিনই ওই গ্রামের জঙ্গল দিয়ে ফিরছিলেন ওই টিন সাধু । এবং তাদেরকে বাচ্চা চোর ভেবে গণপিটুনি দেয় ওই গ্রামবাসীরা। এই ঘটনার সাথে যুক্ত ১২৬ জন গ্রামবাসীকে গ্রে-ফ-তা-র করেছে পুলিশ ইতিমধ্যে ।

এই ঘটনা সিবিআই ত-দ-ন্ত চেয়ে সুপ্রিম কোর্ট এই মা-ম-লার রায় শুনিয়েছে। তবে মহারাষ্ট্র সরকার আপত্তি জানিয়েছে সিবিআই তদন্তের। সরকারের মতে এই ঘটনার তীব্র নিন্দানীয় । তার পাশাপাশি ঘটনার সাথে যুক্ত পুলিশ কর্মী এবং ১২৬ জন গ্রামবাসীকে ইতিমধ্যে গ্রে-প্তা-র করেছে । তবে সেই ঘটনা নিয়ে ফের আরও একবার একরাশ ক্ষো-ভ উগরে দিলেন মহারাজ গিরিন মা।

এই ঘটনায় নি-হ-ত সাধু সুশীল গিরি মহারাজের মা আবারও এই ঘটনায় সিবিআই ত-দ-ন্তে-র দাবি জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, ‘পুলিশ কর্মীদের সামনে দাঁড়িয়েই পালঘরে আমার ছেলেকে মা-রধ-র করা হয়েছে। পুলিশ সেখানে দাঁড়িয়ে ভিডিও করছিল। তারা চাইলে আমার ছেলেকে বাঁচাতেই পারত। তাই আমি এই মামলায় সিবিআই ত-দ-ন্ত চাইছি’। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা এবং এটাই দেখার বিষয় যে আদতে সিবিআই ত-দ-ন্ত হয় কিনা। সেই সময় এই ঘটনাটি ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল নেট দুনিয়ায় ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button