নিউজ

একদম অল্প টাকার পুঁজিতে লাভজনক 13 টি দারুন ব্যাবসার আইডিয়া, যা নারী-পুরুষ উভয়েই শুরু করে লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারেন মাসে!

নিজস্ব প্রতিবেদন: -অনেকেই ভাবেন যে বড় কোন ব্যবসা শুরু করার জন্য একটা বিশাল সংখ্যক পুঁজি প্রয়োজন কিন্তু জানলে হয়তো অবাক হবেন যে আপনি অনেক কম টাকা তেও বড় ব্যবসা দাঁড় করাতে পারেন।

এই প্রসঙ্গে আমরা আসতে পারি ধীরুভাই আম্বানির কথায় ধীরুভাই আম্বানি গুজরাটের সামান্য গ্রামের স্কুল শিক্ষকের ছেলে। যিনি ২৫ বছর কম সময় রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ তৈরি করেছিলেন।যদিও তার সর্বোচ্চ ডিগ্রী ছিল ম্যাট্রিকুলেশন কারণ ছোটবেলা থেকেই তিনি মনে করতেন লেখাপড়ার সাথে টাকা ইনকামের কোন সম্পর্ক নেই।

তিনি মাত্র ১৬ বছর বয়সে অ্যাডেন শহরে গিয়ে পেট্রলপাম্প এটেনডেন্ট হিসেবে কাজ শুরু করেন।তা চিন্তাধারার প্রধান লক্ষ্যই ছিল উপার্জন কে কেন্দ্র করে । তিনি বুঝেছিলেন ইন্ডিয়াতে তেল এবং গ্যাস হলো বড়লোক হবার তার সবচেয়ে বড় রাস্তা।তাই তিনি পেট্রোল পাম্প এ কাজ করার সময় বিভিন্ন পার্টটাইম কাজ করে টাকা উপার্জন করতে থাকেন।

দু’বছর পর কিছু টাকা উপার্জন হয়ে গেলে তিনি তার চাচাতো ভাই চম্পাককাল দামানির সাথে মিলে পলিএস্টারের বিজনেস শুরু করেন ইন্ডিয়া ফিরে এসে।এই বিজনেসে সাফল্য আসলেও চাম্পাকলাল দামানীর সঙ্গে কিছু মতভেদের কারণে তার পার্টনারশিপ ভেঙে যায় এবং পরে তিনি রিলায়েন্স কর্পোরেশন নামে একটি বিজনেস সংস্থা চালু করেন। তিনি নিজের সংস্থায় এত উন্নত মানের ডিভাইস প্রয়োগ করেন যার প্রমান আমরা তাঁর পুত্রের রিলায়েন্স জিও তেও পেয়েছি জিও 4g তে এমন অনেক ডিভাইস ব্যবহার করা হয়েছে যা উন্নতমানের ফাইভ-জি তেও চলবে।

যাইহোক ধীরে ধীরে ধীরুভাই আম্বানি নিজের ব্যবসায়িক সাফল্য এবং বুদ্ধির দ্বারা তার কোম্পানি বিশ্বের প্রথম ৫০০ টি কোম্পানির মধ্যে স্থান লাভ করে এবং হয়তো জানলে অবাক হবেন যে তার মৃত্যুর সময় ধীরুভাই আম্বানির সম্পত্তির মূল্য ছিল প্রায় ৭৫ হাজার কোটি টাকা।

ধীরুভাই আম্বানির এই কাহিনী থেকে কিছু সাধারণ আইডিয়া পাওয়া যায়। এই মন্দার বাজারে যেখানে চাকরি পাওয়া দুষ্কর এবং ব্যবসাটাও পুঁজিপতি ছাড়া করাটা অসম্ভব সেখানে কিছু ছোট্ট আইডিয়ার মাধ্যম আপনিও অর্থ উপার্জন করতে পারেন এবং হতে পারেন বিপুল অর্থের অধিকারী।

১. আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাডিকশন রেখে থাকেন খুব বেশি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনি যেকোন ধরনের সেলিব্রিটি বা পলিটিশিয়ানদের সোশ্যাল মিডিয়ায় একাউন্ট ম্যানেজ করতে পারেন সেলিব্রিটিদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট ম্যানেজ করার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দিতে পারে যার মাধ্যমে আপনি প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

২.ব্যাপারটা অনেকটা ওএলএক্স এর মতন পুরনো জিনিস বিক্রি করার জন্য লোকের অভাব নেই সেরকম কেনার লোকেরও অভাব নেই আপনি আপনার লোকের লোকাল এরিয়াতে এটি চালু করতে পারেন।

৩.আপনি ওয়েডিং প্ল্যানার এর কাজ করতে পারেন এটি একটি সুন্দর ব্যবসা যা মানুষকে মনোরঞ্জন দেবে।

৪.আপনি যদি খাবার পরিবেশনের ক্ষেত্রে পটু হন আপনি সহজেই ক্যাটারিং এর এই ব্যবসাটি করতে পারেন।

৫.যোগা সেন্টার। মানুষকে শরীরকে সুস্থ স্বাভাবিক রাখতে যোগা একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস এখন একটা ব্যবসা হিসেবে আপনি কাজে লাগাতে পারেন এটিকে।

৬.বলপেন বিজনেস এর বিজনেস টি একটি খুবই লাভজনক বিজনেস এর মাধ্যমে আপনি দিনে দু থেকে তিন হাজার টাকা আয় করতে পারেন।

৭.ফাস্ট ফুডের চাহিদা এখন সর্বাগ্রে।তাই আপনি আপনার কাছাকাছি অঞ্চলে খুলে ফেলতে পারেন একটি ফাস্টফুড সেন্টার।

৮.মোবাইল ফোনে তোলা সেলফির যুগ হলেও সবাই চায় তাদের মেমোরি যত্নে রাখতে এই অর্থে ফটোগ্রাফি লাভজনক ব্যবসা।

৯.আপনি কাজে লাগাতে পারেন আপনার পড়াশোনা বা নাচ গানের প্রতিভাকে। খুলে ফেলতে পারেন একটি কোচিং সেন্টার।

১০.অফিস বা স্কুলের কাছাকাছি খুলতে পারেন আপনি কোন মিল সার্ভিস। মহিলাদের ক্ষেত্রে এই আইডিয়াটা খুবই লাভ দায়ক।টিফিন হিসেবে ছোট ছোট স্ন্যাকস বানিয়ে পরিবেশন করতে পারেন।

১১.যদি আপনার বাগান তৈরীর প্রতি ঝোঁক থাকে তাহলে শুরু করে ফেলুন গার্ডেনিং।খুব কম ইনভেস্টমেন্টে এটিও একটি লাভজনক ব্যবসা।

১২. মেডিক্যাল স্যাম্পল কালেকশন একটি খুব লাভজনক এখনকার দিনে আপনি বিভিন্ন রোগীদের স্টুল রক্ত প্রস্রাব হতে সংগ্রহ করে প্যাথলজিক্যাল টেস্ট এর পর রিপোর্টগুলি রোগীদের বাড়িতে পৌঁছে দিতে পারেন।

১৩. ভারতের একটা উল্লেখযোগ্য আয়ের উৎস পর্যটন শিল্প। যদি আপনি পর্যটক স্থান গুলি সম্বন্ধে জ্ঞান লাভ করে থাকেন তাহলে আপনি টুরিস্ট গাইড হিসেবেও কাজ করতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button