নিউজপলিটিক্স

‘তৃণমূলে ফিরছি না, অমিত শাহ ডাকলে কথা বলব’,- তৃনমুল ছাড়তে চান হেভিওয়েট বিধায়ক মিহির গোস্বামী!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ভোটের মুখে ফের বড়োসড়ো ভাঙ্গন তৃণমূলের । আমরা জানি যে আগামী একুশে বিধানসভায় ভোট ঠিক করে দেবে যে আগামী দিনে কে হতে চলেছে বাংলা শাসকদল। নিজেদেরকে শাসকদল প্রমাণ করার এবং ক্ষমতায় আসার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে বঙ্গ বিজেপি। সেই মতো চলছে প্রস্তুতি ও। তারা রীতিমতো এসে পৌঁছেছে মানুষের দরবারে । কখনো কখনো ভুল ভ্রান্তি ঘটলেও সেগুলিকে পিছনে ফেলে রীতিমতো মানুষের বিশ্বাস অর্জন করতে মরিয়া বঙ্গ বিজেপি। মিলছে সফলতা।

সামনের বিধানসভা ভোট কে পাখির চোখ করে যাচ্ছেন সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি। সেই তালিকা থেকে বাদ পড়েনি শাসক দলও । কিন্তু ভোটের প্রাক্কালে বড়সড় ভাঙ্গন তৃণমূলের। এর আগে আমরা দেখেছিলাম বিজেপি থেকে বড় সংখ্যক মানুষ যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে । এবার হল উল্টো । তবে একসাথে অনেক জন মানুষ নয় বরং দল ছাড়লেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা।

উত্তরবঙ্গের কোচবিহারের দক্ষিণ-পূর্ব কেন্দ্রের বিধায়ক মিহির গোস্বামী সাংবাদিকঃ বৈঠকে তুলে ধরলেন এমন এক মন্তব্য রীতিমতো ফেলেছে শাসকদলকে। তৃণমূল আর কোন রকম ভাবে নয় বরং আগামী দিনে অমিত সাহা ডাকলে বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন তিনি এমনটাই জানিয়েছেন ওই দিন সাংবাদিক বৈঠক এ ।

তার এই ঘটনার সামনে আশাতে মাঠে নেমে পড়েছে তৃণমূল সরকার ও। বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীরা তার বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেন কিন্তু কার্যত হয়েছে অসফল। নিজেকে ৯ দিন ঢেকে রাখার পর অবশেষে করলেন সাংবাদিক বৈঠক এবং সেখানে তিনি তুলে ধরলেন এই বক্তব্য।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মিহির গোস্বামী বলেন, ‘‘তৃণমূলে ফিরছি না। আমার যে ন্যূনতম প্রাসঙ্গিকতা আছে তা দলের কলকাতার নেতারা মনে করেন না। তৃণমূলে ফেরার কথা ভাবিনি, ভাবছিও না।’’বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘অমিত শাহ অনেক ওপরের মানুষ৷ আমার মতো মানুষকে তিনি ডাকলে কথা বলব।

আমার মতো ক্ষুদ্র মানুষকে যে তিনি ডাকবেন এটা আশা করি না। সময় বলবে বিজেপিতে যাচ্ছি কিনা। তবে গেলেও কোনও কিছুর বিনিময়ে নয়। মানুষের কাজের ইচ্ছে নিয়ে আমি আমার সিদ্ধান্ত নেব।’’ এখন শুধু দেখার অপেক্ষা যে আদতে তিনি বিজেপিতে যোগদান করেন নাকি নিছকই এটি কোন রাজনৈতিক চাল ছিল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button