নিউজ

গির্জার বাইরে ছটফট করছেন গু’লি’বি’দ্ধ পাদ্রী, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ফের দ্বিতীয়বার র’ক্তা’ক্ত হলো ফ্রান্স!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-আমরা এর আগে বহুবার এমন ধরনের ঘটনার সাক্ষী দেখেছি যার মূল কারণ ধর্ম। ধর্ম আমাদের কিছু ধারণ করতে শেখায় ।কখনো কারোর প্রাণ নিতে বা হ-ত্যা করতে শেখায় না। সে যেকোনো ধরনের ধর্মই হতে পারে তবে ধর্মীয় সাম্প্রদায়িকতা বাড়িয়ে মানুষের প্রাণ নেওয়ার ঘটনা প্রথম নয়। শুধুমাত্র এদেশে নয় দেশের বাইরেও এরকম ঘটনা ঘটে চলেছে প্রতিনিয়ত। তবে সম্প্রতি ফ্রান্সের ঘটনাটি এই মুহূর্তে সবথেকে সমালোচিত একটি ঘটনা ।

বেশ কিছুদিন আগে এক ইতিহাসের শিক্ষক হযরত মুহাম্মদকে কাটুন চিত্রে ব্যঙ্গ করে তার ছাত্রদের দেখান । যদিও সেটি একটি মোমের পুতুল ছিল । ঘটনাটি দেখে উ-ত্তে-জি-ত হয়ে পরে সেখানকার ছাত্র এবং সেই ইতিহাসের শিক্ষককে প্রকাশ্যে শিরশ্ছেদ করে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা । যদিও পরবর্তীকালে পুলিশের গু-লি-তে নি-হ-ত হয় সেই সমস্ত দু-ষ্কৃ-তী। তবে আরও একবার ৭২ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই দ্বিতীয়বার র-ক্তা-ক্ত হলো ফ্রান্সের শহর ।

সাম্প্রতিককালে, ফ্রান্সে এটি তৃতীয় হা-ম-লা৷ প্রথম স্যামুয়েল প্যাটি নামে একজন ইতিহাসের শিক্ষকের শি-র-শ্ছে-দের ঘটনা ঘটে। এর দু’সপ্তাহের মধ্যেই বৃহস্পতিবার নিস শহরের নতর দাম বেসিলিকা চার্চে গলা কেটে খু-ন হয় ১ মহিলা সহ ৩৷ এবং এটি তৃতীয় ঘটনা। ফ্রান্সের উপর বারবারই স-ন্ত্রাস-বাদীর হা-ম-লা বেড়েই চলেছে যা সেখানকার বাসিন্দাদের মধ্যে আ-ত-ঙ্ক সৃষ্টি করেছে ব্যাপকভাবে ।

ফ্রান্সের লিয়ন শহরে ৫২ বছরের পাদ্রী কে প্রকাশ্যে গু-লি করল বেশ কিছু আ-ত-তা-য়ী । চিকিৎসকদের মতে, শনিবার গ্রীক গোঁড়া গির্জার পাদ্রিকে খুব কাছ থেকে পেটে গু-লি করা হয়। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, যেখানে তাঁর জীবন-মৃ-ত্যু-র ল-ড়া-ই চলছে। হামলাকারীকে ধরতে ত-ল্লা-শি অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।ঘটনার পিছনে একজন আ-ত-তা-য়ী ছিল বলে জানা গিয়েছে৷ তবে একাধিক আততায়ীর তথ্যও উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ৷

জানানো হয়েছে যে, হা-ম-লাকা-রীরা লম্বা কালো রঙের জামা পরেছিল এবং শটগানটি তাদের কোটের ভিতরে লোকানো ছিল। লিওনের চার্চের আশপাশের বাসিন্দারা জানিয়েছেন যে, যাজককে দু’জন গু-লি-বি-দ্ধ করেছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী, একজনকে হঠাৎ করে পালিয়ে আসতে দেখা যায় এবং তারপরে ওই যাজক র-ক্তা-ক্ত অবস্থায় গির্জার দরজার বাইরে আ-হ-ত অবস্থায় পড়ে ছিলেন। হামলার পেছনের কী উদ্দেশ্য তা স্পষ্ট নয়৷

এই ধরনের ঘটনাকে গু-রুত-র ঘটনা বলে চিহ্নিত করেছে ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী । সাধারণ জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন ফ্রান্সে বেড়েছে সন্ত্রাসীদের হামলা কার্যত অতি সাবধানে দিন কাটাতে অনুরোধ করেছেন সাধারণ জনগণকে । এর পাশাপাশি ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে মৃ-তে-র স্মৃতির উদ্দেশে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী Jean Castex জানান, ” এই হিংসার ঘটনা আমাদের দেশের সামনে খুব গম্ভীর এবং নতুন একটা চ্যালেঞ্জ খাড়া করল।”

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button