নিউজপলিটিক্স

“অপদার্থ প্রধানমন্ত্রীর জন্যই চীন ভারতের জমি দখল করে আছে, কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকলে চীনকে ছুঁড়ে ফেলে দিতো”- মোদীকে কটাক্ষ রাহুলের!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-যতই সামনের ভোট এগিয়ে আসছে ততই যেন উত্তপ্ত রাজনীতির মহল গুলি । একের পর এক চলছে পাল্টা প্রতিক্রিয়া । সম্প্রতি কৃষি বিল নিয়ে দেশজুড়ে আন্দোলন চলছে তার সাথে আন্দোলন চলছে উত্তরপ্রদেশে গণধর্ষণের ঘটনা আন্দোলন চলছে উত্তরপ্রদেশে গণধ-র্ষ-ণে-র ঘটনা কে নিয়ে ।

ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি। তবে এই কৃষি ঋণ নিয়ে প্রথম থেকেই প্রথম থেকেই নিয়ে প্রথম থেকেই ঋণ নিয়ে প্রথম থেকেই প্রথম থেকেই নিয়ে প্রথম থেকেই সরব হয়েছিলেন কংগ্রেস । আরো একবার মোদি কে কটাক্ষ করলেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক কৃষি বিল ২০২০ লাগু করা হয় । যে বিল অনুসারে বলা হয় যে কৃষকের নির্দিষ্ট মূল্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ থাকবে না । তারপর থেকেই শুরু হয়ে যায় এর প্রতিরোধ । প্রতিবাদের মাঠে নামে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি। তার মধ্যে কংগ্রেস আলাদাই নজর কেড়েছে এই প্রতিবাদের মঞ্চ থেকে

। আমরা জানি গত ৪০ বছর ধরে পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার এদেশের খাদ্যশস্য সরবরাহ করে আসছে। কাজেই এই কৃষি বিল এর প্রভাব সবথেকে বেশি পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার তে পড়বে এমন টা খুব স্বাভাবিক । কৃষিভিত্তিক এই দেশে কৃষি ঋণ রীতিমতো এক ভয়ঙ্কর সমস্যা ডেকে আনতে পারে বলে মনে করছে অনেকে।

সেই পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার থেকে বেশি মাত্রায় সরব হয়েছেন কংগ্রেস। ইতিমধ্যে তারা একটি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে যার নাম ” খেতি বাঁচাও” এবার এই ক্ষেতি বাঁচাও সভার পর কংগ্রেস রাহুল গান্ধী আরও একবার এক হাত নিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রীকে. ছুড়ে দিলেন কটাক্ষ। এই প্রসঙ্গে তিনি তিনি টেনে আনেন চীনের জমি দখল ব্যাপারটাকে ব্যাপারটাকে দখল ব্যাপারটাকে জমি দখল ব্যাপারটাকে ব্যাপারটাকে দখল ব্যাপারটাকে ।

এর পাশাপাশি কংগ্রেস প্রধানমন্ত্রী কি ভীতু এবং কাপুরুষ বলে কটাক্ষ করেছে। বললেন, প্রধানমন্ত্রী ভীতু। তিনি চিনের বিরুদ্ধে সাহস দেখাতে পারেন না। কংগ্রেস কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকলে মাত্র ১৫ মিনিটেই চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) বাহিনীকে ভারতের ভূখণ্ড থেকে ছুঁড়ে ফেলে দিত।

কাপুরুষ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, কেউ আমাদের জমি দখল করেনি। আজ বিশ্বে একটিই মাত্র দেশ আছে যার জমি আরেকটি দেশ দখল করে আছে। ভারতই একমাত্র দেশ যেখানে ঢুকে ১২০০বর্গকিমি জমি নিয়ে নিয়েছে অন্য একটি দেশ। অথচ প্রধানমন্ত্রী নিজেকে দেশভক্ত বলছেন। গোটা দেশ জানে চিনা বাহিনী আমাদের ভূখণ্ডে ঢুকে বসে আছে। তবে কেমন দেশপ্রমিক উনি? ক্ষমতায় থাকলে চিনকে বের করে দিতে আমাদের ১৫ মিনিটও লাগত না।

আপনাদের গ্যারান্টি দিয়ে বলছি, আমাদের সরকার যখন ক্ষমতায় ছিল, চিনের আমাদের দেশে এক পা ফেলার মতো যথেষ্ট সাহসই ছিল না। আর আজ সারা দুনিয়ায় একটাই দেশ আছে যার জমি কেড়ে নেওয়া হয়েছে। সেই দেশটা হল ভারত। এরপরেও ওরা নিজেদের দেশপ্রেমিক বলে বড়াই করে চলেছে! কংগ্রেসের এই বক্তব্যকে রীতিমতো সমর্থন জানিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা মন্ত্রীরা। সবার লক্ষ্য একটাই যেকোনো উপায়ে কৃষিবিল লাগু হতে দেওয়া চলবে না ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button