নিউজ

ফের ভগবান রামচন্দ্রের অপমান, পাকিস্তানে হিন্দু মন্দির ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হলো, হলোনা কোনো আন্দোলন-প্রতিবাদ!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন :-ভারতের সাথে পাকিস্তানের যে চিরশ-ত্রুতা সেই ঘটনা আমরা অনেক আগে থেকেই জানি। বলাবাহুল্য সেই ছোট থেকে জানি । পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ বা পাকিস্তানের সাথে মনোমালিন্য কথা প্রায়ই শুনে থাকি আমরা। মাঝেমধ্যেই পাকিস্তানের জ-ঙ্গি-রা আ-ক্র-মণ করে ভারতের উপর ।

Advertisement

তার নিকৃষ্ট উদাহরণ ২০১২ তে তাজ হোটেলের ঘটনা । যদিও এর বিপক্ষে কড়া জবাব দিয়েছিল ভারত এবং এখনো যেসব ঘটনা ঘটে চলেছে তার বি-রু-দ্ধে প্রতিনিয়ত জবাব দিয়ে চলেছে ভারত। তবুও কোথাও যেন তাদের শিক্ষা আর হয়ে ওঠে না ।

Advertisement

বর্বরতার চরম সীমায় পৌঁছে গেছে পাকিস্তান এবং তার প্রমাণ সম্প্রতি আরও একটি ঘটনা তার আগে বলে রাখি পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশ এ গত ১০ বছর ধরে রেকর্ড চলছে হিন্দুদের প্রতি অ-ত্যা-চা-রের । সেখানকার মানুষদের কে ধর্মান্তর থেকে শুরু করে মেয়েদেরকে ধ-র্ষ-ণ পর্যন্ত অভি-যো-গ উঠে এসেছে।

Advertisement

এর পাশাপাশি যে সব হিন্দু ধর্মাবলম্বী মন্দির আছে তা এর আগে ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেওয়া হতো । পাকিস্তানের সমাজকর্মী ও সংখ্যালঘুদের স্বার্থরক্ষার জন্য লড়াই করা অনিলা গুলজা-র দাবি করেছেন, পাকিস্তানের সিন্ধপ্রদেশে ৪২৮ টি হিন্দুদের মন্দির ছিল। এখন সেখানে হিন্দুদের মন্দিরের সংখ্যা ২০-তে এসেছে।

Advertisement

ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর থেকে বলেছিলেন যে তিনি নতুন করে পাকিস্তান গড়বেন। আর সংখ্যালঘু হিন্দু, খ্রিস্টান, আহমাদিয়া সম্প্রদায়ের ওপর কোনো রকম নির্যা-ত-ন হবে না। কিন্তু বাস্তবে ঠিক তার উল্টোটাই হচ্ছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য বেশ কিছুদিন আগে পাকিস্তানের একটি হিন্দু বস্তিতে বুলডোজার দিয়ে ভেঙে দেওয়া হয়েছিল সমস্ত ঘর গুলি এবং এটি দাঁড়িয়ে থেকে করেছিল পাকিস্তানের এক মন্ত্রী । এভাবে প্রতিদিন বেড়েই চলেছে হিন্দুদের প্রতি অত্যাচার । তবে সম্প্রতি আরেকটি ঘটনা গোপন সূত্রে জানা গেছে ।

Advertisement

এখানে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা একাধিকবার আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আ-কর্ষ-ণে-র চেষ্টা করেছেন। তবে প্রতিবারই পাকিস্তান সরকার সেই দাবি নস্যাৎ করেছে। এবার পাকিস্তানের সিন্ধুপ্রদেশে আবার আরেকটি হিন্দু মন্দির ভাঙার ঘটনার খবর মিলেছে। গতকালই সিন্ধ প্রদেশের কারিও ঘনওয়ার এলাকার সেই রাম মন্দিরটিকে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। তবে এই ঘটনার কড়া জবাব ভারত একদিন ঠিক দেবে এমনটা মনে করছে অনেক ।

Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button