নিউজভিডিও

স্ত্রীকে বে’ধ’ড়ক মা’র’ছেন উচ্চপদস্থ পুলিশ অফিসার!বাঁ’চাতে এসেও পারলোনা পোষ্য কুকুর, ভাইরাল ভিডিও!

Advertisement

নিজস্ব প্রতিবেদন:-কথায় আছে “যে রক্ষক সেই ভক্ষক ” বর্তমানে সেরকমই কিছু একটি ঘটনা সামনে এলো আমাদের । আমরা যখন কোন সমস্যার সম্মুখীন হয় তখন সাধারণত পুলিশ স্টেশনে গিয়ে থাকি। পুলিশকে জানায় আমাদের সমস্যার কথা । এবং সেইরূপ তারা আইনি ব্যবস্থা নিয়ে থাকেন ।

Advertisement

কিন্তু এই পুলিশ যখন জড়িয়ে পড়ে নিজেই বধূ নির্যাতনের কেস এ তাহলে ? তাহলে ঠিক কোথায় থাকবে সম্মানটা পুলিশের। ঠিক এমনটাই ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের ডিজি পুরুষোত্তম শর্মা সাথে। ঘটনাটি সামনে আসাতে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়ায় নেট দুনিয়ায় । এবং শুরু হয় সমালোচনার ঝড় । কি ঘটেছিল তার সাথে? জানবো বিস্তারিত।

Advertisement

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে পুরুষোত্তম শর্মা অর্থাৎ রাজ্য পুলিশের ডিজি তার স্ত্রীকে অকথ্য ভাবে অকথ্য ভাবে মারছেন। এটি কোন একটি অপরিষ্কার ভিডিও নয় একদম পরিষ্কার ঝকঝকে একটি ভিডিও যেখানে স্পষ্ট দুজনের মুখ । এর পাশাপাশি দেখা যায় স্ত্রীর হাতে রয়েছে একটি কাচিও কিন্তু কেন এরূপ করা হচ্ছে সেই প্রশ্নের উত্তর খোঁজা শুরু হয়েছে। উত্তর ও এসেছে । জানাবো আপনাদের।

Advertisement

আইপিএস পুরষোত্তম শর্মার ছেলে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র, ডিজিপি এবং অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে শর্মার কার্যকলাপের একটি ভিডিও পাঠিয়েছে। তবে ভিডিওটি সামনে আসার পরেও এখনও পুলিশ আধিকারিকরা এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি। এমনকি এখনও  পর্যন্ত পুরষোত্তম শর্মার বিরুদ্ধে কোনও শাস্তিমূলক পদক্ষেপও নেওয়া হয়নি।

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এর আগে পুরুষোত্তম শর্মা ‘ হানিট্রেপ মামলায় নাম জড়িয়েছিল । রাজ্যের বাইরে এসটিএফ প্লট নিয়েও তাঁর নাম উঠে এসেছিল। এই বিতর্ক আরও বাড়লে তাঁকে  ডিজিপি-র সামনে জবাবদিহি করতে হয়৷ তৎকালীন কমলনাথ সরকার সেইসময় পুরষোত্তম শর্মাকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

Advertisement

জানা যায় পুরুষোত্তম শর্মা ছেলে নিজে একটি সরকারি উচ্চপদস্থ আধিকারিক। এ বিষয়ে পুরুষোত্তম শর্মা কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান তিনি রীতিমতো বিরক্ত হয়ে উঠেছেন এই সম্পর্কে । তিনি অন্য সম্পর্কে যেতে রাজি তবে তার পাশাপাশি তিনি এটাও জানেন তার কাছে কোনো অস্ত্র ছিল না বরং তার স্ত্রীর কাছে ধারালো কাঁচি ছিল যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরত্তম মিশ্র জানিয়েছেন ” আমি যদি লিখিত অ-ভি-যো-গ পাই তবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Advertisement

একই সঙ্গে মহিলা কমিশন এই পুলিশ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করার দাবি জানিয়েছে। তাঁদের দাবি এই পুলিশ আধিকারিকের গার্হস্থ্য হিংসার জন্য জেল হওয়া উচিত৷ ঘটনাটি সামনে আসতেই শুরু হয়েছে নেট দুনিয়া জুড়ে সমালোচনার ঝড়।

Advertisement

Advertisement
Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button